728 x 90
728 x 90
728 x 90
Advertisement
create a new WordPress Website

লক্ষ্মীপুরে উচ্ছেদ অভিযান, ১১ ব্যবসায়ীর স্বপ্ন ভাংচুর

লক্ষ্মীপুরে উচ্ছেদ অভিযান, ১১ ব্যবসায়ীর স্বপ্ন ভাংচুর

লক্ষ্মীপুরে উচ্ছেদ অভিযান, ১১ ব্যবসায়ীর স্বপ্ন ভাংচুর

 সোহেল হোসেন লক্ষ্মীপুর প্রতিনিধি: লক্ষ্মীপুর পৌর শহরে ১১ টি ব্যবসা প্রতিষ্ঠান গুঁড়িয়ে দিয়েছে স্থানীয় প্রশাসন। শনিবার (২৯ মে) সকাল থেকে বিকেল পর্যন্ত পৌর শহরের চকবাজার এলাকার এসব দোকান খাস খতিয়ান ভুক্ত সম্পত্তিতে অবৈধভাবে গড়ে উঠেছে উল্লেখ করে এক্সিভেটর দিয়ে এগুলো গুড়িয়ে দেয়া হয়। এদিকে ব্যবসায়ীদের দাবী, জেলা পরিষদ থেকে ইজারা নিয়ে দোকান ঘর নির্মাণ করে ব্যবসা প্রতিষ্ঠান চালিয়ে আসছিলেন তারা। কোন প্রকার পুনর্বাসন ও ক্ষতিপূরণ ছাড়াই তাদের উচ্ছেদ করা হয়েছে বলে অভিযোগ করেন ব্যবসায়ীরা। এসময় চরম ক্ষোভ প্রকাশ করে কান্নায় ভেঙ্গে পড়েন ক্ষতিগ্রস্থ ওই ১১ জন ব্যবসায়ী। এ বিষয়ে জানতে চাইলে কোন কথা বলতে রাজি হননি উচ্ছেদ অভিযানে অংশ নেয়া দায়িত্বশীল কেউই। সকাল সাড়ে ১০ টার দিকে জেলা শহরে অবস্থিত লক্ষ্মীপুর-৩ আসনের সংসদ সদস্য ও সাবেক বিমান পরিবহন ও পর্যটন মন্ত্রী এ কে এম শাহজাহান কামালের জেলা শহরের বাসভবনের সামনের মার্কেটের প্রধান সড়কে র‌্যাব, পুলিশ, সড়ক ও জনপথ বিভাগের দায়িত্বশীলরা, জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট ও সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোহাম্মদ মাসুম ও সহকারী কমিশনার (ভূমি) মোঃ মামনুর রশিদ অবস্থান নেন। এসময় প্রায় তিনঘন্টাব্যাপী বেকু ও বুলডেজার দিয়ে ১১ টি দোকানঘর উচ্ছেদ করেন তারা। এসময় ক্ষতিগ্রস্থ দোকানীরা বিক্ষুব্ধ হয়ে রাস্তায় কান্নায় ভেঙ্গে পড়েন। কেউ কেউ অভিযোগ করেন, স্থানীয় এমপি’র বাসভবন ও মার্কেটের সামনের রাস্তা পরিস্কার করতে এ অভিযান চালানো হয়। ক্ষতিগ্রস্থ ব্যবসায়ীরা জানান, দীর্ঘ ৫০ বছর ধরে জেলা পরিষদ থেকে ইজারা নিয়ে দোকান ঘর নির্মাণ করে ব্যবসা প্রতিষ্ঠান চালিয়ে আসছিলেন তারা। হঠাৎ ২০১৭ সালের দিকে সড়ক প্রশস্থ করণের নামে তাদের ইজারা নবায়ন বন্ধ করে দেয় জেলা পরিষদ। এর পর গত ২৭ মে জেলা প্রশাসকের কার্যালয় থেকে অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ অভিযানের নোটিশ পান তারা। এ ব্যাপারে জানতে চাইলে উচ্ছেদ অভিযানে আসা নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেটরা কোন কথা বলতে রাজি হননি। তবে জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান মোঃ শাহজাহান জানান, রাস্তা প্রশস্থ করণের দাবীর প্রেক্ষিতে জনস্বার্থে ৪ শতাংশ জমির জন্য সড়ক ও জনপথ বিভাগের আবেদন গ্রহণ করে জেলা পরিষদ। রাস্তা ছাড়া বাকি সম্পদ জেলা পরিষদেরই মালিকানাধীন থাকবে বলে জানান তিনি।

Posts Carousel

Latest Posts

Top Authors

Most Commented

Featured Videos

ক্যালেন্ডার

June 2021
F S S M T W T
 123
45678910
11121314151617
18192021222324
252627282930