728 x 90
728 x 90
728 x 90
Advertisement
create a new WordPress Website

বউকে নিয়ে গিয়ে প্রেমিকের সাথে বিয়ে

বউকে নিয়ে গিয়ে প্রেমিকের সাথে বিয়ে

বউকে নিয়ে গিয়ে প্রেমিকের সাথে বিয়ে

নিজস্ব প্রতিবেদক: স্বামীর বাড়ি থেকে স্ত্রী কে ফুসলিয়ে এনে স্বামীর সাথে তালাক ব্যতিত সাবেক প্রেমিকের সাথে বিয়ে দেয়ার ঘটনা ঘটেছে। গত ১০ মে ২০২০ ইংরেজী পটুয়াখালীর কলাপাড়া উপজেলার মহিপুর থানার মহিপুর সদর ইউনিয়নের ইউসুফপুর গ্রামের বাসিন্দা মোঃনুরুল ইসলাম হাওলাদার এর কন্যা মোসাঃ রিয়ামনি আর কুয়াকাটা পৌরসভার ২ নং ওয়ার্ডের বাসিন্দা মোঃআলতাফ গাজীর বড় পুত্র আলেম মোঃআবু তাহের মিলে এ ঘটনা সৃষ্টি করে। গত ৬ জুন বেলা ১১টার দিকে মোঃ পলাশ জানান, ইউসুফপুর গ্রামের বাসিন্দা মোঃ নুরুল ইসলাম হাওলাদার এর কন্যা মোসাঃ রিয়া মনি (২১) এর সাথে কেরানীগঞ্জ উপজেলার কদমতলী এলাকার মোঃ নুরুল ইসলামের পুত্র নজরুল ইসলাম পলাশ (২৬) এর ইসলামী শরীয়াহ মোতাবেক ২৪ মে ২০১৯ ইংরেজী বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হয়। একটি বেসরকারী প্রতিষ্ঠানে চাকুরী করে পলাশ বেশ ভালোই চলছিল সংসার জীবন। মহামারী করোনা ভাইরাসের আক্রমনে যখন সারা বিশ্ব থমকে যায়, তখন বেকারত্ব জীবনের পাশাপাশি অনেকের বেড়ানোর সুযোগ সৃষ্টি হয়েছিলো। আর তা কাজে লাগাতে সু-দূর ঢাকা কেরানীগঞ্জ স্বামীর বাড়ি থেকে ফুসলিয়ে বাবার বাড়িতে নিয়ে আসে রিয়ামনিকে তার বাবা-মা। ৯ মে ২০২০ ইংরেজী পর্যন্ত পলাশের সাথে রিয়ামনির মুঠো ফোনে কথা হয়। মাত্র দুদিনের ব্যাবধানে রিয়ামনির অন্যত্র কুয়াকাটা পৌরসভা এলাকার ২ নং ওয়ার্ডের বাসিন্দা মোঃ আলতাফ গাজীর বড় পুত্র আলেম মোঃ আবু তাহেরের সাথে বিবাহ বন্ধনের সংবাদ ছড়িয়ে পরে। এক স্বামী থাকা অবস্থায় তালাক প্রদান না করে অন্য স্বামী গ্রহণের বিষয়টি অত্যন্ত পরিকল্পিত বিধায় মোকাম বিজ্ঞ চীফ জুডিশিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট আদালত নং-২, ঢাকা, (দক্ষিন কেরানীগঞ্জ আমলী), সি আর মামলা নং-৫৫৪/২০২০ এর ৩৮০/৪২০/৪৯৪/৪৯৬/৪৯৭/ ১০৯ ধারায় আনায়ন করেন পলাশ।ম্যাজিষ্ট্রেট মামলাটি তদন্তে দিলে দীর্ঘ ৫ মাস পর তদন্তকারী কর্মকর্তা আদালতে চার্জশিট দাখিল করে এবং আদালত থেকে আসামিদের সমন দেয়া হয়। তথ্য সংকলে প্রথমেই সরকার নিষিদ্ধ বিবাহ ও তালাকের নোটারী ১ তর্ফা তালাক সৃষ্টি করায় প্রতারণার অভিযোগ। অপরদিকে ১৯-০৩-২০২০ তাং একই দিনে পাশাপাশি সিরিয়াল নম্বরের ৪টি স্ট্যাম্প ক্রয়ের মাধ্যমে ২টি স্ট্যাম্প ০১-০১-২০২০ তাং তালাকের নোটারী পাবলিক করা হয় এবং অপর স্ট্যাম্প ২টির মাধ্যমে ১০-০৫-২০২০ তাং বিয়ের নোটারী কার্য ও ১ তর্ফা তালাক প্রদান করে এবং মহিপুর থানা কাজী অফিসের বালাম নং-৫১, পৃষ্ঠা নং-৬৮তে নিকাহ নামা রেজিঃ করা হয়। বধুর তালাক নামা কাজি অফিসে গ্রহণ না করে পুনরায় নিকাহনামা রেজিঃ করেছেন কি ভাবে? এমন প্রশ্নের জবাবে, কাজী তার ভুল শিকার করে নিকাহনামা বাতিলের প্রত্যয়নপত্র দিতে বাধ্য হয়েছেন। কিন্তু রিয়ামনির আগের স্বামীকে বৈধভাবে তালাকের কাগজ গ্রহণ না করে অবৈধ ভাবে আবু তাহের বিয়ের পিড়িতে বসেছে। ফলে পলাশের জীবন সংসারে নেমে এসেছে অপূরনীয় ক্ষতি। নিজের সর্বস্ব শেষ করে হলেও অপরাধীদের বিচার আদালতের কাঠ গোড়াই হবে। যাতে করে এই পৃথিবীতে এ ধরণের কাজ আরেকটির পুনরাবৃত্তি না ঘটে। ন্যায়ের শক্ত হাতিয়ার নিয়েই- অন্যায়ের বিরুদ্ধে লড়াইয়ের সাহস যোগিয়ে দিয়েছে ওই মানুষ নামের অমানুষ গুলি। এতোক্ষন স্ত্রী কর্তৃক স্বামী নির্যাতন ও পরিত্যাগের লোমহর্ষক বর্ননা দিয়ে, ভুক্তভোগী পলাশ সংশ্লীষ্ট বিচারক কর্তৃপক্ষের কাছে নায্য বিচার প্রার্থনা

Posts Carousel

Latest Posts

Top Authors

Most Commented

Featured Videos

ক্যালেন্ডার

June 2021
F S S M T W T
 123
45678910
11121314151617
18192021222324
252627282930