728 x 90
728 x 90
728 x 90
Advertisement
create a new WordPress Website

রাজারহাটে আসন্ন ঘড়িয়াল ডাঙ্গা ইউপি নির্বাচনে সম্ভাব্য চেয়ারম্যান প্রার্থীদের প্রচার-প্রচারণা

রাজারহাটে আসন্ন ঘড়িয়াল ডাঙ্গা ইউপি নির্বাচনে সম্ভাব্য চেয়ারম্যান প্রার্থীদের প্রচার-প্রচারণা
রাজারহাটে আসন্ন ঘড়িয়াল ডাঙ্গা ইউপি নির্বাচনে সম্ভাব্য চেয়ারম্যান প্রার্থীদের প্রচার-প্রচারণাসোহেল রানা, কুড়িগ্রাম জেলা প্রতিনিধি

রাজারহাটে আসন্ন ঘড়িয়াল ডাঙ্গা ইউপি নির্বাচনে সম্ভাব্য চেয়ারম্যান প্রার্থীদের প্রচার-প্রচারণা

 

রাজারহাট উপজেলার ১নং ঘড়িয়াল ডাঙ্গা ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচন কে সামনে রেখে প্রার্থীদের আগাম প্রচার-প্রচারণার তৎপরতা দেখা যাচ্ছে।বিশ্ব মহামারী করোনার ছোবলে জাতি আজ দিশেহারা।করোনার মৃত্যুর হার নিয়ন্ত্রনে রাখতে সরকার ইতিমধ্যে লক ডাউন সহ নানাবিধ পদক্ষেপ গ্রহণ করেছেন।দফায় দফায় লক ডাউনের সময় সীমা বৃদ্ধি করছেন।গত মার্চ মাসে নির্বাচন কমিশন ইউপি নির্বাচনের প্রথম দফার ভোট গ্রহণের তফসিল ঘোষণা করলেও করোনার কারনে তা স্থগিত করেন।নির্বাচন কমিশনের নির্দেশে ইউপি নির্বাচন বন্ধ থাকলেও থেমে নেই প্রার্থীদের প্রচার-প্রচারনা।কঠোর লক ডাউনের মধ্যেও প্রার্থীরা নানা উপায়ে ছূটছেন ভোটাদের মনোযোগ আকর্ষণ করতে।

সরেজমিনে গিয়ে জানা যায় এবারের ইউপি নির্বাচন ঘিরে ঘড়িয়াল ডাঙ্গা ইউনিয়নে ভোটারদের মাঝে চলছে নানা কানাঘুষা।বর্তমান নৌকা মার্কার চেয়ারম্যান রবীন্দ্রনাথ কর্মকার ও তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী কুদ্দুস প্রমাণিকের মধ্যে তীব্র ভোট যুদ্ধের আভাস পাওয়া যাচ্ছে।যদিও কুদ্দুস প্রমাণিক গত ইউপি নির্বাচনে নৌকা মার্কা চেয়েও পায়নি।পরে স্বতন্ত্র প্রার্থী হয়ে ভোট যুদ্ধে অংশ গ্রহণ করে তুমুল প্রতিদ্বন্দ্বিতা করে নৌকা মার্কার প্রার্থী রবিন্দ্রনাথ কর্মকারের কাছে পরাজিত হন।অপর দিকে ঘড়িয়াল ডাঙ্গা ইউনিয়নের সাবেক ছাত্রলীগের সভাপতি ও বর্তমান যুবলীগের সভাপতি এবং ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক(একাংশ)

রুকুনুজ্জামান রোকন আসন্ন ঘড়িয়াল ডাঙ্গা ইউপি নির্বাচনে নৌকা মার্কা পেতে জোর তদবির চালাচ্ছেন।আওয়ামীলীগ ও সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীদের সাথে নিয়ে আওয়ামীলীগের বিভিন্ন কর্মসূচী পালন করে তার সাংগঠনিক শক্তিমত্তা জানান দিচ্ছেন।আরেক প্রার্থী ঘড়িয়াল ডাঙ্গা ইউনিয়নের বিশিষ্ট ব্যবসায়ী ও সমাজ সেবক আলতাফ হোসেন আসন্ন ইউপি নির্বাচন ঘিরে জনসাধারনের মনোযোগ আকর্ষণ করতে ছুটে চলছেন ইউনিয়নের এক প্রান্ত থেকে প্রান্তে।তিনিও নৌকা মার্কার প্রত্যাশা করে উপজেলা ও জেলা আওয়ামীলীগের দায়িত্বশীল নেতাদের সাথে যোগাযোগ চালিয়ে যাচ্ছেন।কোন ভাবেই কেউ কাউকে ছাড় দিতে নারাজ।ঘড়িয়াল ডাঙ্গার ইউপি নির্বাচন ঘিরে আওয়ামীলীগের মনোনয়ন প্রত্যাশীদের তৎপরতা দেখা গেলেও তেমন তৎপরতা দেখা যায়নি অন্যদলের প্রার্থীদের।তবে বিএনপি থেকে গত নির্বাচনে ধানের শীষ প্রতিক নিয়ে আব্দুল্লাহ নোমান নির্বাচনে অংশ গ্রহণ করলেও এবার নির্বাচনে অংশ গ্রহণ করার ব্যাপারে তেমন আগ্রহী নন বলে তিনি জানান।ঘড়িয়াল ডাঙ্গা ইউনিয়নের জাতীয়পার্টির নেতা সাদ্দাম হোসেন লাঙ্গল প্রতিক নিয়ে নির্বাচনে অংশ গ্রহণের আগ্রহ প্রকাশ করেন।আসন্ন ইউপি নির্বাচন নিয়ে ঘড়িয়াল ডাঙ্গা বাজারের চন্দন রায় বলেন দেখে আসছি নৌকা মার্কার প্রার্থীই বিজয়ী হচ্ছেন এবারও যে নৌকা মার্কা পাবে সেই চেয়ারম্যান হবে।কেশামত নাখেন্দার খাদিজা বেগম বলেন ভোট সুষ্ঠ হলে বর্তমান চেয়ারম্যান পরিবর্তন হতে পারে।চর খিতাব খার খলিলুর রহমান বলেন ভোটে তো নাই আগে ভোট আসুক তারপর দেখি কাকে ভোট দেওয়া যায়।তবে ঘড়িয়াল ডাঙ্গার প্রায় অর্ধশত সাধারণ মানুষ সাংবাদিক কে বর্তমান চেয়ারম্যান রবিন্দ্রনাথ কর্মকার ও সাবেক চেয়ারম্যান কুদ্দুস প্রমাণিকের মধ্যে তীব্র প্রতিদ্বন্দ্বিতা হবে বলে জানান।দুঃখ ও পরিতাপের বিষয় বর্তমান করোনাকালীন সংকটে ঘড়িয়াল ডাঙ্গা ইউনিয়নের নিম্ন আয়ের মানুষজনের আয় উপার্জন একেবারেই কমে গেছে।পরিবার পরিজন নিয়ে বেশ কষ্টে দিনানিপাত করছেন এসকল নিম্ন আয়ের মানুষের পাশে সাহায্য সহযোগীতা নিয়ে এখন পর্যন্ত কোন প্রার্থীকে তাদের পাশে দাড়াতে দেখা যায়নি।তবে এব্যাপারে একাধিক প্রার্থী বলেন করোনা কালিন সময়ে সরকারী নির্দেশনা থাকায় একজন প্রার্থী হিসেবে গনজমায়েত করতে পারছি না।সরকার লক ডাউন শিথিল করলে প্রয়োজনীয় খাদ্য সামগ্রী নিয়ে জন সাধারনের পাশে দাড়াবো,তবে সর্তকতা অবলম্বন করে অনেক কে বিভিন্ন ভাবে আর্থিক সাহায্য সহযোগীতা করে যাচ্ছি।বর্তমান চেয়ারম্যান রবিদ্রনাথ কর্মকারের বিরুদ্ধে সাম্প্রতিক সময়ে উঠা তার বিরুদ্ধে নানা অনিয়মের অভিযোগ সম্পর্ক জিজ্ঞেস করলে তিনি সাংবাদিক কে জানান,এগুলো রাজনীতির অংশ রাজনীতি আমার পেশা নয় নেশা।জনগনের জন্য সেই ছোট বেলা থেকে কাজ করে যাচ্ছি যারা আমাকে হিংসে করে তারা আমাকে রাজনৈতিক ভাবে ঘায়েল করতে আমার বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করে এই মিথ্যা অপ প্রচার চালাচ্ছেন।সাংবাদিকের এক প্রশ্নের জবাবে কুদ্দুস প্রমাণিক বলেন নির্বাচন করবো এটা নিশ্চিত,নৌকা মার্কা পেলেও নির্বাচন করবো আর না পেলেও নির্বাচন করবো।সাংবাদিকদের সাথে আলাপ চারিতায় রুকুনুজ্জামান রোকন বলেন আমার মত নির্যাতিত কোন আওয়ামীলীগ নেতা ঘড়িয়াল ডাঙ্গা ইউনিয়নে নেই।বিএনপি সরকারের আমলে দলের জন্য কাজ করতে গিয়ে মামলা হামলার স্বীকার হয়েছি,অবশ্যই দল আমাকে সেই মুল্যায়ন করবে।অপর প্রার্থী বিশিষ্ট ব্যবসায়ী ও সমাজ সেবক আলতাফ হোসেন সাংবাদিকদের বলেন ব্যবসা বানিজ্য করে আমি অল্প সময়ে নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করেছি বাকী জীবন টা জনগনের সেবা করে কাটিয়ে দিতে চাই।তবে আমি আশাবাদী নৌকা প্রতিক পাবো।

 

Posts Carousel

Latest Posts

Top Authors

Most Commented

Featured Videos